ব্লগ

ক্রিকেট হাইলাইটস, ০৪ এবং ০৫ সেপ্টেম্বর: সিপিএল ২০২১ (ম্যাচ ১৫ এবং ১৬), ইংল্যান্ড বনাম ভারত (ডব্লিউটিসি, ৪র্থ টেস্ট – ৩য় দিন)

সেন্ট লুসিয়া কিংস ও সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের মধ্যে সিপিএল ২০২১ এর ১৫তম ম্যাচ, গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স ও বার্বাডোস রয়্যালসের মধ্যে সিপিএল ২০২১ এর ১৬ তম ম্যাচ এবং ইংল্যান্ড এবং ভারতের মধ্যকার চতুর্থ টেস্টের তৃতীয় দিনের খেলা গতকাল এবং আজ সকালে মাঠে গড়িয়েছে। ম্যাচের উত্তেজনাপূর্ণ ঘটনাগুলো সম্পর্কে জানতে নিবন্ধনটি এক ঝলক দেখা যাক।

সিপিএল ২০২১ ম্যাচ ১৫ (সেন্ট লুসিয়া কিংস বনাম সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস)

সিপিএল এর ১৫ তম ম্যাচে ফাফ ডু প্লেসিসের দুর্দান্ত সেঞ্চুরির সৌজন্যে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের বিপক্ষে ১০০ রানের বিশাল জয় পেয়েছে সেন্ট লুসিয়া কিংস। টসে হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ২২৪ রানের বড় সংগ্রহ করে কিংস। দলের পক্ষে ১৩ চার ও ৫ ছক্কায়, ৬০ বলে সর্বোচ্চ ১২০ রান করেন অধিনায়ক প্লেসিস। এছাড়া রোস্টন চেজ ৭ চার ও ৩ ছক্কায়, ৩১ বলে ৬৪ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন।

২২৫ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কিংসের দুর্দান্ত বোলিংয়ে তাসের ঘরের মত ভেঙে পড়ে প্যাট্রিয়টসের ব্যাটিং লাইন-আপ। যারফলে ইনিংসের ১৯ বল বাকি থাকতে ১২৪ রানে অল-আউট হয়ে যায় প্যাট্রিয়টস। দলের পক্ষে ৫ চার ও ৬ ছয়ে, ৪২ বলে সর্বোচ্চ ৭৩ রান করেন এভিন লুইস। এছাড়া ক্রিস গেইল (১৪) ও শেরফেন রাদারফোর্ড (১১) ব্যতীত কেউ দুই অঙ্কের স্কোর ছুঁতে পারেনি। কিংসের হয়ে সর্বাধিক ৩টি করে উইকেট তুলে নেন কিমো পল ও আলজারি জোসেফ।

এই ম্যাচে জয়ী হয়ে পয়েন্ট টেবিলের ২য় স্থানে উঠে এসেছে কিংস এবং পরাজিত হয়ে প্যাট্রিয়টস এখনও ১ম স্থানে অবস্থান করছে।

স্কোরবোর্ড

সেন্ট লুসিয়া কিংস – ২২৪/২ (২০.০)

সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস – ১২৪/১০ (১৬.৫)

ফলাফল – সেন্ট লুসিয়া কিংস ১০০ রানে জয়ী

প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ – ফাফ ডু প্লেসিস



সিপিএল ২০২১ ম্যাচ ১৬ (গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স বনাম বার্বাডোস রয়্যালস)

সিপিএল এর ১৬তম ম্যাচে চন্দ্রপল হেমরাজের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে বার্বাডোস রয়্যালসের বিপক্ষে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স ৯ উইকেটে বড় জয় লাভ করেছে। টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে রয়্যালস নির্ধারিত ২০ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে ১৩০ রান সংগ্রহ করে। 

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২৮ রানের ইনিংস খেলেন আজম খান। এছাড়া জনসন চার্লস ২৩ এবং রেমন রেইফার ও শাই হোপ দুজনেই ২২ রান করেন। ওয়ারিয়র্সের হয়ে ইমরান তাহির সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট শিকার করেন। এছাড়া রোমারিও শেফার্ড ২টি উইকেট তুলে নেন।

১৩১ রানের সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১৪.২ ওভারেই ১ উইকেট হারিয়ে জয়ের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যায় ওয়ারিয়র্স। দলের পক্ষে ১৪ চার ও ৫ ছক্কায়, ৫৬ বলে সর্বোচ্চ ১০৫ রানের ইনিংস খেলেন হেমরাজ। রয়্যালসের হয়ে নেইম ইয়াং ১টি উইকেট তুলে নেন। 

এই ম্যাচে জয়ী হয়ে পয়েন্ট টেবিলের ৩য় স্থানে উঠে এসেছে ওয়ারিয়র্স এবং পরাজিত হয়ে রয়ল্যাস পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে অবস্থান করছে।

স্কোরবোর্ড

বার্বাডোস রয়্যালস – ১৩০/১০ (২০.০)

গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স – ১৩৬/১ (১৪.২)

ফলাফল – গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স ৯ উইকেটে জয়ী

প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ – চন্দ্রপল হেমরাজ


ইংল্যান্ড বনাম ভারত (৪র্থ টেস্ট – ৩য় দিন)

রোহিত শর্মার অসাধারণ সেঞ্চুরির সঙ্গে চেতেশ্বর পূজারার দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চতূর্থ টেস্টে বড় লিডের পথে রয়েছে সফরকারী ভারত। ১২৭ রান করে আউট হয়েছেন রোহিত। আর পূজারা ফেরেন ৬১ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের স্কোর উইকেটে ২৭০ রান।

এরই মধ্যে ১৭১ রানের লিড নিয়েছে বিরাট কোহলির দল, হাতে রয়েছে আরো ৭টি উইকেট। টেস্ট ব্যাটিংয়ের দুর্দান্ত প্রদর্শনীতে ভারতকে মজবুত ভিতে দাঁড় করিয়ে দেন রোহিত কেএল রাহুল। রাহুলকে (৪৬) ফিরিয়ে ৮৩ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন জেমস অ্যান্ডারসন। এরপর রোহিতের সঙ্গে পূজারার জুটিও জমে ওঠায় বড় স্কোরের সম্ভাবনা জেগে ওঠে ভারতের।

দ্বিতীয় উইকেটে ১৫৩ রানের জুটি গড়ার পর একই ওভারে তাঁদের দুজনকেই ফিরিয়ে দেন অলি রবিনসন। তবে এরপর আর কোনো উইকেট পড়তে দেননি ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি রবীন্দ্র জাদেজা। কোহলি ২২ জাদেজা রানে অপরাজিত থেকে তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করেছেন।

স্কোরবোর্ড

ভারত (১ম ইনিংস) – ১৯১/১০ (৬১.৩)

ইংল্যান্ড (১ম ইনিংস) – ২৯০/১০ (৮৪.০)

ভারত (২য় ইনিংস) – ২৭০/৩ (৯২.০)

 

বিশ্বজুড়ে তীব্র লড়াইয়ের সাথে লোভনীয় ক্রিকেট খেলা চলছে। তাদের আপডেটের জন্য, Baji –র সাথেই থাকুন!

আরো ব্লগ