ব্লগ

ক্রিকেট হাইলাইটস, ০২ এবং ০৩ সেপ্টেম্বর: সিপিএল ২০২১ (ম্যাচ ১৩ এবং ১৪), ইংল্যান্ড বনাম ভারত (ডব্লিউটিসি, ৪র্থ টেস্ট – ১ম দিন)

সেন্ট লুসিয়া কিংস বনাম গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সের মধ্যে সিপিএল ২০২১ এর ১৩ তম ম্যাচ, সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস বনাম বার্বাডোস রয়্যালসের মধ্যে সিপিএল ২০২১ এর ১৪ তম ম্যাচ এবং ইংল্যান্ড ও ভারতের মধ্যে চতুর্থ টেস্টের প্রথম দিনের খেলা গতকাল এবং আজ সকালে মাঠে গড়িয়েছে। ম্যাচের উত্তেজনাপূর্ণ ঘটনাগুলো সম্পর্কে জানতে নিবন্ধনটি এক ঝলক দেখে নিই। 

সিপিএল ২০২১ ম্যাচ ১৩ (সেন্ট লুসিয়া কিংস বনাম গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স)

সিপিএল এর ১৩ তম ম্যাচে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে ৫১ রানের বিশাল জয় পেয়েছে সেন্ট লুসিয়া কিংস। টসে হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৪৯ রান তুলতে সমর্থ হয় কিংস। দলের পক্ষে ৬ চার ও ৭ ছক্কায়, ৫০ বলে সর্বোচ্চ ৮৫ রান করেন রোস্টন চেজ। ওয়ারিয়র্সের হয়ে সর্বোচ্চ ৩টি করে উইকেট শিকার করেন ওডিয়ান স্মিথ ও রোমারিও শেফার্ড।

১৫০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রথম থেকেই চাপে পড়ে যায় ওয়ারিয়র্স। কিংসের বোলারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে ৬ ওভারে মাত্র ১৬ রান তুলতে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলে ওয়ারিয়র্স। শেষে নিকোলাস পুরান (৪১) ও স্মিথ (৩১) চেষ্টা করলেও জয়ের বন্দরে আর পৌঁছাতে পারেনি তারা। শেষে ১৯ বল বাকি থাকতে দলীয় ৯৮ রানে অল-আউট হয়ে যায় ওয়ারিয়র্স। কিংসের হয়ে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট শিকার করেন জেভার রয়্যাল।

এই ম্যাচে জয়ী হয়ে পয়েন্ট টেবিলের ৫ম স্থানে অবস্থান করছে কিংস এবং পরাজিত হয়ে ওয়ারিয়র্স ৪র্থ স্থানে রয়েছে। 

স্কোরবোর্ড:
সেন্ট লুসিয়া কিংস – ১৪৯/৭ (২০.০)
গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স – ৯৮/১০ (১৬.৫)
ফলাফল – সেন্ট লুসিয়া কিংস ৫১ রানে জয়ী
প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ – রোস্টন চেজ


সিপিএল ২০২১ ম্যাচ ১৪ (সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস বনাম বার্বাডোস রয়্যালস)

সিপিএল এর ১৪তম ম্যাচে বার্বাডোস রয়্যালসের বিপক্ষে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস ২ উইকেটে জয়ী হয়েছে। টসে হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে রয়্যালস নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৬০ রান সংগ্রহ করে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৪ রানের ইনিংস খেলেন স্মিত প্যাটেল। এছাড়া জনসন চার্লস ৩০ ও জেসন হোল্ডার ১৯ রান করেন। প্যাট্রিয়টসের হয়ে ডোয়াইন ব্রাভো সর্বাধিক উইকেট শিকার করেন (৪-২৬, ৪ ওভার)। এছাড়া শেলডন কটরেল ১টি উইকেট তুলে নেন।

১৬১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ৪৯ রান তুলে ফেলে প্যাট্রিয়টস। এরপর দলীয় ৮৪ রানে ২য় উইকেট হারানো দলটি স্কোর বোর্ডে মাত্র ১২ রান যোগ করতেই হারিয়ে ফেলে আরও ৪ উইকেট। ৯৬ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে প্যাট্রিয়টস। কিন্তু সেখান থেকে দলকে টেনে তুলেন ডমিনিক ড্রেক্স (১৫ বলে ২৮) এবং কটরেল (৭ বলে ২০)। তাদের দুর্দান্ত ইনিংসের সৌজন্যেই শেষ পর্যন্ত জয়ের বন্দরে পৌঁছায় প্যাট্রিয়টস।

এই ম্যাচে জয়ী হয়ে টানা পঞ্চম জয় নিয়ে এখন পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছে প্যাট্রিয়টস এবং পরাজিত হয়ে রয়ল্যাস পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে অবস্থান করছে।

স্কোরবোর্ড:
বার্বাডোস রয়্যালস – ১৬০/৮ (২০.০)
সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস – ১৬৩/৮ (২০.০)
ফলাফল – সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস ২ উইকেটে জয়ী
প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ – শেলডন কটরেল


ইংল্যান্ড বনাম ভারত (৪র্থ টেস্ট – ১ম দিন)

দ্য ওভালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের চতুর্থ টেস্টের প্রথম ইনিংসে ক্রিস ওকস এবং ওলি রবিনসনের বোলিং তোপে ১৯১ রানে গুটিয়ে গেছে সফরকারী ভারত। ব্যাটিংয়ে ব্যর্থতার পর বল হাতে ১৭ ওভারে অবশ্য ইংল্যান্ডের ৩ উইকেট তুলে নিয়েছে কোহলির দল।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ২৮ রানের উদ্বোধনী জুটি উপহার দেন রোহিত শর্মা এবং কেএল রাহুল। ২৭ বলে ১১ রান করা ‘হিটম্যান’ রোহিতকে জনি বেয়ারস্টোর গ্লাভসবন্দি করে পরাজয়ের সূচনা করেন ওকস। এরপর ১৭ রান করে রবিনসনের শিকার হন রাহুল। চেতেশ্বর পূজারাকে ৪ রানে সাজঘরে ফেরান জেমস অ্যান্ডারসন। তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে যথারীতি ফিফটি করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি (৫০)। 

এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ভারত। ৪ উইকেটে দলীয় ১০৫ রান থেকে ১২৭ রানে ৭ উইকেট হয়ে যায় ভারতের স্কোর বোর্ড। শেষে সাত নম্বরে নামা শার্দুল ঠাকুরের ৭ চার আর ৩ ছক্কায়, ৩৬ বলে ৫৭ রানের ঝড়ো ইনিংসের সৌজন্যে ১৯১ রান তুলতে সমর্থ হয় সফরকারীরা। ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বাধিক ৪টি উইকেট শিকার করেন ক্রিস ওকস। এছাড়া ওলি রবিনসন ৩টি, জেমস অ্যান্ডারসন ১টি ও ক্রেগ ওভারটন ১টি করে উইকেট তুলে নেন। 

জবাবে শেষ বিকেলে খেলতে নেমে ১৭ ওভারে ৫৩ রান তুলতে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। দলীয় ৬ রানের মধ্যে দুই ওপেনার ররি বার্নস (৫) ও হাসিব হামিদকে (০) হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় তারা। দ্বিতীয় উইকেটে ৪৬ রান যোগ করেন জো রুট ও ডেভিড মালান। তবে উমেশ যাদবের বলে বোল্ড হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন রুট (২১)। মালান (২৬) এবং ওভারটন (১) উইকেটে অপরাজিত থেকে ১ম দিনের খেলা শেষ করেছেন।

স্কোরবোর্ড:
ভারত (১ম ইনিংস) – ১৯১/১০ (৬১.৩)
ইংল্যান্ড (১ম ইনিংস) – ৫৩/৩ (১৭.০)

বিশ্বজুড়ে প্রাণবন্ত ক্রিকেট খেলা চলছে। এই সকল ম্যাচগুলোর আপডেটের জন্য, Baji –র সাথেই থাকুন!

আরো ব্লগ